1. live@www.dainiksomoyerunnayan.com : news online : news online
  2. info@www.dainiksomoyerunnayan.com : দৈনিক সময়ের উন্নয়ন :
  3. mdzahidlama@gmail.com : zahid Hasan : zahid Hasan
সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
কোয়ান্টামম আরোগ্যশালায় বিশ্ব মেডিটেশন দিবসে দেড় সহস্রাধিক ধ্যানীর সমাগম বান্দরবানের সাংসদকে নিয়ে মিথ্যাচারের প্রতিবাদে কাজী মুজিব এঁর বিবৃতি লামায় জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস-২০২৪ পালিত লামার কোয়ান্টাম কসমো স্কুল ও কলেজ জিমন্যাস্টদের ১৯টি পদক অর্জন লামায় দেশীয় অস্ত্রসহ সন্ত্রাসীকে আটক করেছে জনতা পল্লী বন্ধু উন্নয়ন সংস্থা’য় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি লামা চাম্বি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের গভর্ণিং বডি নির্বাচন-২০২৪ এর তফসিল ঘোষণা লামায় লাখ টাকা জরিমানা দিয়ে ছাড় পেলেন ট্রাক লামা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিন পদে ৯ জন মনোনয়ন দাখিল করেছেন লামায় সরকারি অর্থে করা পানির উৎস ধ্বংস রোধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামণা

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ছৈয়দুল বশর জনপ্রিয়  প্রার্থী প্রচারণায় ১৫ জন

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: সোমবার, ৪ মার্চ, ২০২৪
  • ২১ বার পড়া হয়েছে

 

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি।।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ঘনিয়ে এসেছে। এরিই মধ্যে বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাচনে উপজেলায় আওয়ামী লীগ, বিএনপি-জামায়াতের ডজনের অধিক প্রার্থীকে ভোটের মাঠ গরম করতে দেখা যাচ্ছে।এসব নিয়ে দলটির স্থানীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়েছে। দলীয় প্রতীক বরাদ্দ না থাকায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উপজেলায় ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে প্রার্থী ও ভোটারের মাঝে।নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ১১ মে অনুষ্ঠিত হবে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে নিজেদের মতামত জানান দিচ্ছেন। এছাড়াও বিএনপি-জামায়াতে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকা নেতারাও উপস্থিতি জানান দিয়েছেন।নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন সময় নির্বাচিত প্রার্থীরা আবারও প্রার্থী হবেন। এছাড়াও সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে অনেকেই আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।চালিয়ে যাছেন নানা তদবির-লবিং। নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার আকাশে-বাতাসে নির্বাচনের খবর। এই নির্বাচনে সম্ভাব্য ও নিদিষ্ট প্রার্থীদের মাঠের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে ও প্রার্থীদের নিজস্ব মতামতের ভিত্তিতে তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে।বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত মতে এই উপজেলায় নির্বাচন হবে দ্বিতীয় ধাপে, যার সম্ভাব্য তারিখ ১১ মে।ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের স্থানীয় অনেক নেতাই নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে নিজেদের উপস্থিতি জানান দিয়েছেন। তবে বিএনপি-জামায়াত সহ অন্য দলগুলোর প্রার্থীরাও পিছিনে নেই। তারাও মাঠে জন সমর্থন আদায়ে ব্যস্ত আগাম সময় পার করছেন।জানানো হয়েছে, এবারের উপজেলা নির্বাচনে নিজেদের ‘নৌকা’ প্রতীক দেবে না দলটি। যার কারণে দলীয় প্রতীক পাওয়ার জন্য ঢাকায় জোর তদবির চালিয়ে সময় নষ্ট না করে মাঠপর্যায়ে গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধিতে মনোযোগী হয়েছেন অনেকেই। তবে এর মধ্যেও দলীয় সমর্থন আদায় করতে মরিয়া হয়ে কাজ করছেন অনেকেই। দলীয় সমর্থন পেলে ভোটে জয়ের পথ অনেকটা মসৃণ হয়ে যাবে বলে কারণ হিসেবে মনে করছেন তারা। গণসংযোগসহ বিভিন্ন সামাজিক কাজকর্মে অংশ নিচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। যোগাযোগ বৃদ্ধি করছেন তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে। মাঠের রাজনীতির পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও সরব তারা।৫টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সর্বশেষ ২০১৯ সালের নির্বাচনে উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ শফিউল্লাহ। এবারও তিনি প্রার্থী হতে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।তিনি বলেন, ‘আমি জনগণের ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। জনগণ আমাকে চায়। তবে দলীয় প্রতীক না থাকলেও দলীয়ভাবে এককপ্রার্থীই আওয়ামী লীগের হয়ে নির্বাচন করবে। দলীয় সিদ্ধান্তে আমাকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করলে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জনগণ আবারও প্রমাণ করবে, আমার বিগত দিনের সফলতা কী ছিল।’নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার ব্যাপারে যাদের নামে গুঞ্জন রয়েছে, তারা হলেন- বর্তমান চেয়ারম্যান ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ শফিউল্লাহ, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবু তাহের কোম্পানি, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মংহ্লা ওয়াই মার্মা, জামায়াত নেতা, মোহাম্মদ রফিক বসরী, বিএনপি নেতা তোফায়েল আহমেদ, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন, ঘুমধুম ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি দ মানবিক নেতা এম. ছৈয়দুল বশর।এসব সম্ভাব্য প্রার্থীদের সাথে যোগাযোগ করলে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আবু তাহের কোম্পানি জানান, আমি দলীয় সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করে, দল চাইলে প্রার্থী হবো। দল যাকে একক প্রার্থী দিবে, তার জন্য কাজ করবো।বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মংলা ওয়াই মার্মা জানান, তিনি চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। না দিলে ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবেন।জামায়াত নেতা মোহাম্মদ রফিক বসরী জানান, দলীয়ভাবে জামায়াত নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে দলের নির্দেশনামতে মাঠে আছি, দলের সিদ্ধান্ত হলে নির্বাচন করবো।বিএনপি নেতা তোফায়েল আহমেদ জানান, এটি কোনো দলীয় নির্বাচন নয়, নির্বাচনে দলীয় প্রতীক থাকলে না। দলীয় সিধান্ত যায় হোক না কেন আমি নির্বাচন করবো। আমি দীর্ঘসময় চেয়ারম্যান ছিলাম, সুস্থ নির্বাচন হবে। জনগণের চাইলে আবারও চেয়ারম্যান হয়ে সেবা দিবো।উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন ও ঘুমধুম ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ছৈয়দুল বসর এই প্রার্থী জানান, তারা দু’জনই জনগণের চাওয়ার উপর নির্ভর করে প্রার্থী হতে চান, তবে নিশ্চিত নয়।এ দু’প্রার্থীর মধ্যে ছৈয়দুল বশর মাঠ পর্যায়ের অনেকটা শক্তিশালী প্রার্থী। তিনি উচ্চ পর্যায়ে জোর লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন, দলীয় প্রার্থী হতে।তবে দল তাকে প্রার্থী করলে অবশ্যই নির্বাচন করবেন।ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়বেন, গতবারের প্রার্থী শাহজাহান কবির, জামায়াত নেতা মোহাম্মদ আবু নাসের, আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক চোচুমং মার্মা।মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদেও শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকবে এই নির্বাচনে। লড়াইয়ে নামবেন উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি সানজিদা আক্তার রুনা, সদর ইউনিয়ন মহিলা মেম্বার রাশেদা বেগম, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেত্রী হামিদা চৌধুরী, বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামিমা আকতার। এসব প্রার্থীরা নিজে বা তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে নির্বাচন করবে বলে প্রতিবেদককে নিশ্চিত করছেন। তবে দেখার বিষয় শেষ পর্যন্ত কে কে প্রার্থী হচ্ছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

পুরাতন সংবাদ পড়ুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট